বিষ্ময়কর ৩২ ব্রেইনের প্রাণী | Leech

আমদের মানুষের কেবল একটি মাত্র ব্রেইন, আর এই একটি মাত্র ব্রেইনকেই আমরা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভাবে বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করার পর ও বিজ্ঞানের মতে আমরা আমাদের ব্রেইনের মাত্র ১০ ভাগই ব্যবহার করি। কিন্তু পৃথীবিতে এমন ও এক বিষ্ময়কর প্রানী আছে যার শরীরবৃত্তীকভাবে ৩২ টা ব্রেইন রয়েছে। চলুন বিষ্ময়কর ৩২ ব্রেইনের প্রাণী সম্পর্কে বিস্তারিত>

বিষ্ময়কর প্রাণীটি আমাদের খুব পরিচিত যার নাম Leech,মানে জোঁক। কি অবাক হচ্ছেন! আসলেই জোঁকের শরীরবৃত্তীকভাবে ৩২ টা ব্রেইন রয়েছে। বিশ্লেষণ: জোঁকের বাহ্যিক বা অভ্যন্তরীন বিভাজন একে অপরের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। যদি অভ্যন্তরীন দেহ পরীক্ষা করা হয়, তাহলে দেখা যাবে যে শরীরটি ৩২ টি অংশ বা কন্ড বিভক্ত যার প্রতিটি কন্ডের নিজস্ব মস্তিষ্ক রয়েছে। এগুলি পৃথক মস্তিষ্ক নয়, তবে একই মস্তিষ্ক জোঁকের বিভাগ অনুসারে ৩২টি ভাগেতে বিভক্ত। এই সেগমেন্টের প্রয়েকটির ব্রেইনের নিজস্ব নিউরোনাল গ্যাংলিয়া রয়েছে যা পরেরটির সাথে যুক্ত। অতএব, শরীরবৃত্তীকভাবে বলতে গেলে, এটি একই একক মস্তিষ্ক যা সারা শরীরে ৩২ টি বিভাগে বিদ্যমান। যেহেতু প্রতিটি গ্যাংলিয়ন তার সংশ্লিষ্ট বিভাগকে নিয়ন্ত্রন করতে পারে এবং স্বাধীনভাবে কাজ করে, তাই বলা হয় যে এটি শরীরবৃত্তীক ভাবে জোঁক ৩২ টি মস্তিষ্কের অধিকারী।

কিন্তু মজার কথা হলো এই যে শরীরবৃত্তীক ৩২টি আলাদা সংক্রিয় ব্রেইন তাকার পর ও ওদের একমাত্র প্রধান কাজ হলো রক্ত চুসা। আর জোঁক একবার কারো রক্ত চুসার পর ১ বছর পর্যন্ত আর কারো রক্ত না খেয়ে জীবিত তাখতে পারে।

চিকিৎসা কাজে শরীরের রক্ত চলাচল বৃদ্ধি করে হার্ডের কার্যকমতা বৃদ্ধি করার জন্য জোঁক থেরাপি দিন দিন জনপ্রিয় হচ্চে।

বিষ্ময়কর ৩২ ব্রেইনের প্রাণী – তথ্যটি ভালো লাগলে কমেন্টে জানান, আর আপনাদের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন>

4 thoughts on “বিষ্ময়কর ৩২ ব্রেইনের প্রাণী | Leech

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *